আজ | শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১
Search

প্রচ্ছদ বিদেশ মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থান

ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থান

চাহিদা নিউজ ডেস্ক | ৪:৫০ অপরাহ্ন, ১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১

মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থান বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বিবৃতি দিয়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের প্রত্যাশা মিয়ানমারে গণতন্ত্র ও শান্তি বজায় থাকবে। সোমবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিবৃতিতে বলেছে, বাংলাদেশ গণতান্ত্রিক মূল্যবোধে বিশ্বাস করে এবং প্রসার করে। আমরা আশা করি যে, মিয়ানমারে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া ও সাংবিধানিক ব্যবস্থা বজায় থাকবে। নিকট ও প্রতিবেশী বন্ধু হিসেবে বাংলাদেশ মিয়ানমারের শান্তি ও স্থিতিশীলতা দেখতে চায়। দেশটির সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখার জন্য সচেষ্ট বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের স্বপ্রণোদিত, নিরাপদ ও টেকসই প্রত্যাবাসনের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। আমরা আশা করি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনসহ অন্যান্য সহযোগী প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে।

মিয়ানমারের সামরিক অভ্যুত্থান নিয়ে ইতিমধ্যেই গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছে ভারত। এছাড়া মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানে যুক্তরাষ্ট্রও নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে। এ বিষয়ে অন্য দেশ ছাড়াও নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘ।

সোমবার সকালে মিয়ানমারে জরুরি অবস্থা জারি করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। এক বিবৃতিতে তারা জানিয়েছে, দেশের ক্ষমতা কমান্ডার-ইন-চিফ মিন অং হলাইংয়ের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। অর্থাৎ মিয়ানমারের ক্ষমতা এখন সেনাবাহিনীর দখলে। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছেন কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

এর আগে দেশটির ক্ষমতাসীন দল ন্যাশনাল লীগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) প্রধান অং সান সু চি, দেশটির প্রেসিডেন্ট উইন মিন্টসহ বেশ কয়েকজনকে আটক করে সেনাবাহিনী। সোমবার সকালে অভিযান চালিয়ে এসব নেতাকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন এনএলডির মুখপাত্র মিও নিয়ুন্ট।

গত কয়েকদিন ধরেই সু চির বেসামরিক সরকার এবং দেশটির সেনাবাহিনীর মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। গত বছরের নভেম্বরের নির্বাচনে অং সান সু চির এনএলডি সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করে। তারপর থেকেই মূলত দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা হয়। প্রথম থেকেই সেনাবাহিনী নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ আসছিল।

নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ এনেই মূলত সোমবার ক্ষমতা দখল করেছে সেনাবাহিনী। একই সঙ্গে দেশজুড়ে এক বছরের জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। এনএলডির মুখপাত্র মিও নিয়ুন্ট বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘আমি লোকজনকে বলব চটজলদি এই ঘটনায় প্রতিক্রিয়া না দেখাতে। আমি চাই সবাই আইন মেনে চলবেন।’

আপনার মন্তব্য লিখুন